Youth Science Academy
AD
AD 2
Odesk এ আমার একবছর ১মাস ২৭ দিন…

Odesk এ আমার একবছর ১মাস ২৭ দিন…

গত ০২/০৫/১১ ইং আমি odesk একাউন্ট খুলি কিন্তু প্রোফাইল ১০০% করতে সময় লাগে ১৫দিন। এরপর মনে হল যে আমি যেই বিষয়ে কাজ করবো তাতে কয়েকটা টেস্ট দেয়া দরকার। যেই কথা, সেই কাজ Photoshop & Illustrator টেস্ট দিলাম। আমি প্রথম বার ফটোশপ এ পাস করতে পারি নি কিন্তু ইলাস্টেটোর এ আমি বরাবর ই ভালো ছিলাম। একটা কথা বলা দরকার যে আমি odesk কাজ শুরু করার আগে 99design এ চেষ্টা করি। 99design এ ৩৪ টা প্রোজেক্ট সাবমিট করেছি কিন্তু একটা প্রোজেক্ট জিতেছিলাম। যদিও আমার ভুলে আমি সেই প্রোজেক্ট এর টাকা উঠাতে পারি নি।99design থেকে কোন টাকা উঠাতে না পারলেও এখানে জা শিখেছি সেটা ভোলার নয়। আর এখন কেও যদি আমাই জিজ্ঞেস করে ডিজাইন সেখার জন্য কি কি করা সবচেয়ে জরুরি আমি বলি Competition এ অংশগ্রহন করা খুব জরুরি।

যখন 99designs এ একটা প্রোজেক্ট জেতার পরও টাকা উঠাতে পারি নাই তখন মনে খুবই কষ্ট লেগেছে কিন্তু কখনও আমি আশা ছাড়িনি। এরপর 99designs এর পার্ট চুকিয়ে odesk এ কাজ শুরু করি। প্রোফাইল ১০০% হবার পর আমাকে বেশিদিন বসে থাকতে হয়নি। ৪ দিন এর মধ্যে ৩ টা কাজ পায়। প্রথমে কাজ গুলো বুঝতে খুব সমস্যা হতো কিন্তু আমি খুব বেশি সময় নিয়ে ক্লায়েন্ট এর কাজের Requirement গুলো পড়তাম এবং কাজ শুরু করতাম। এভাবে প্রথম মাসে আমি মাত্র ৪০০০ টাকা এর কাজ পাই , তার পরের মাসে ৭০০০টাকা এবং ৩য় মাসে ২৪০০০টাকা। এরপর আর পেছনে তাকাতে হয়নি। আস্তে আস্তে আমার কাজের চাপ এতটাই বেড়ে যায় যে আমি একা কাজ করে শেষ করতে পারি না। কিন্তু কাজ গুলো কাকে দিয়ে করাবো তেমন কাউকেও পাচ্ছিলাম না। odesk কাজ Post করে Payment দেবার কোনো পথ পাছছিলাম না। আমি একটা Master Card নিলাম কিন্তু সেই কার্ড টাও odesk এ সাপোর্ট করে না। আমি তখনও জানতাম না যে odesk এর Default Account থেকে Payment দেয়া যাই। যখন জানলাম তখন যে কি আনন্দটা লেগেছে বলে বোঝাতে পারবো না। এরপর আমি বড় বড় কাজে বিড করা শুরু করলাম আর আমার কোম্পানি এর মাধ্যমে সেটা করতে থাকি। এখন আমার কোম্পানিতে ১০ টা এর মতো ছেলে কাজ করে যাদের প্রতি মাস গড়ে ৩৫০০০টাকা দিতে হচ্ছে। তারপরও আমার কোম্পানি থেকে অনেক ভালো কিছু পাচ্ছি।

এখন আমার odesk এর ১ বছর ২মাস চলছে কিন্তু এই কম সময় এর মধ্যে আমি অদেস্ক থেকেই টাকা উঠিয়েছি $12000 এর উপরে। এখনও কাজ চলছে প্রায় $14000। আমি, ওডেস্ক, আমার কোম্পানি Expert Solutions খুব ভালো আছি। আমার Expert Solutions নিয়ে অনেক স্বপ্ন এবং আমার স্বপ্ন পুরনের জন্য আমি যেকোনো কষ্ট করতে পারি।

শেষে একটা কথা না বললে অনেক বড় বেইমানি হয়ে যাবে। টা হল ইন্টানেট এর হাতেখড়ি আমার শ্রদ্ধেয় বড় ভাই Sumon (আমার মেসের বড় ভাই) ভাই এর হাত ধরে যিনি এখন New York এ আছেন। আমাকে তিনি কাজ সেখান নি কিন্তু আমি ওনার পাশে বসে প্রথম Facebook and Email খোলা শিখেছি। তারপর থেকেই ইন্টারনেট এর প্রতি অন্যরকম ভালবাসা। কাজ শিখেছি নিজের ল্যাপটপ এ কিন্তু আমার এর পর্যন্ত আসার পেছনে সবচেয়ে বেশি অনুপ্রেরনা যে দিয়েছে সে আমার সবচেয়ে প্রিয় বন্ধু, আমার ভাবি স্ত্রী নাহিদা। টার ঋণ শোধ করার মতো নয়।

Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads AdsAds Ads Ads Ads Ads Adsss Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads AdsAds Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads AdsAds Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads AdsAds Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads AdsAds Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads AdsAds Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads Ads AdsAds Ads Ads Ads Ads Ads
AD Place
hair tonic